Required Documents for College Admission XI Class

আজকে আমরা আলোচনা করব College Admission অর্থাৎ অনলাইনে ভর্তি আবেদন সম্পন্ন করার পর যখন কলেজ নিশ্চায়ন হয়ে যাবে। তার পরবর্তী কার্যক্রম কলেজে ভর্তি সম্পন্ন প্রক্রিয়া নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো।

Required Documents for College Admission XI Class

যেমন কলেজে ভর্তি হওয়ার জন্য যেসকল ডকুমেন্টস এর প্রয়োজন হবে, প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস কোথায় থেকে সংগ্রহ করতে হবে, এলাকার উপর নির্ভর করে ভর্তি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার জন্য ভর্তি ফি বাবদ কত টাকা লাগতে পারে সে সম্পর্কে ধারণা ইত্যাদি।

College a vorti hote ki ki lagbe – কলেজে ভর্তি হওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস

  • এসএসসি রেজাল্ট এর মূল মার্কশিট অর্থাৎ একাডেমিক ট্রান্সক্রিপ্ট। (দুই কপি ফটোকপি)
  • এসএসসি রেজাল্ট এর মূল প্রশংসা পত্র অর্থাৎ একাডেমিক টেস্টমনিয়াল। (দুই কপি ফটোকপি)
  • মূল প্রবেশপত্র অর্থাৎ এডমিট কার্ড। (দুই কপি ফটোকপি)
  • মূল রেজিস্ট্রেশন কার্ড। (দুই কপি ফটোকপি)
  • ভর্তি ফরম।
  • মোবাইল নম্বর।
  • সিকিউরিটি কোড।
  • ভর্তি কোটায় প্রযোজ্য ডকুমেন্টস।
  • শিক্ষার্থীর পাসপোর্ট সাইজের ছবি। (৪ থেকে৬ কপি)
  • শিক্ষার্থীর স্ট্যাম্প সাইজের ছবি। (২ থেকে ৪) কপি
  • পিতা-মাতা বা অভিভাবকের পাসপোর্ট সাইজের ছবি। (২ থেকে ৪) কপি
  • শিক্ষার্থীর জন্ম নিবন্ধন কার্ডের ফটোকপি অথবা ভোটার আইডি কার্ডের ফটোকপি।
  • পিতা-মাতা বা অভিভাবকের জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি।

সাধারণত কলেজে ভর্তি হওয়ার জন্য এই সকল ডকুমেন্টস এর বাহিরে অন্য কোন ডকুমেন্টস এর প্রয়োজন হয় না। তবে কিছু কিছু কলেজ এবং বিশেষ করে ক্যান্টনমেন্ট কলেজ গুলোতে এক্সট্রা কিছু ডকুমেন্টস চাইতে পারে সেগুলো কলেজ থেকে জানিয়ে দেওয়া হবে।

কলেজে ভর্তি হওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস গুলো যেভাবে সংগ্রহ করতে হবে

এসএসসি রেজাল্ট এর মূল মার্কশিট অর্থাৎ একাডেমিক ট্রান্সক্রিপ্ট টি সংগ্রহ করতে হবে স্কুল থেকে। অর্থাৎ যে স্কুল থেকে আপনি SSC পাস করেছেন । কিছু কিছু স্কুল দেরি করে একাডেমিক ট্রান্সক্রিপ্ট আনে। এই ক্ষেত্রে বিষয়টি কলেজ কর্তৃপক্ষকে জানাতে হবে এবং মার্কশিটের অনলাইন কপি জমা দিতে হবে। এসএসসি রেজাল্ট এর মূল প্রশংসা পত্র অর্থাৎ একাডেমিক টেস্টমনিয়াল স্কুল থেকে সংগ্রহ করতে হবে। যেহেতু একাডেমিক টেস্টমনিয়াল আগে থেকেই তৈরি করা থাকে তাই স্কুল কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করলেই কোন ঝামেলা ছাড়া সংগ্রহ করে নিতে পারবেন। মূল প্রবেশপত্র অর্থাৎ এডমিট কার্ড এবং মূল রেজিস্ট্রেশন কার্ড এগুলো অলরেডি আপনার কাছে সংগ্রহ করা আছে। নতুন করে সংগ্রহ করার প্রয়োজন নেই।

আরও পড়ুন: BNMC Nursing Admission Details | নার্সিং ভর্তি পরীক্ষা ২০২

ভর্তি ফরম কলেজের অফিস কক্ষ থেকে সংগ্রহ করতে হবে। কিছু কিছু কলেজ অনলাইনে ভর্তি ফরম পূরণ করে থাকে সেক্ষেত্রে উক্ত কলেজের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে ভর্তি ফরম পূরণ করতে হবে। মোবাইল নম্বরের জায়গায় সেই মোবাইল নম্বরটি ব্যবহার করবেন যেটি দিয়ে অনলাইনে ভর্তি আবেদন করা হয়েছিল। যখন অনলাইনে ভর্তি আবেদন সম্পন্ন হয়েছিল তখন একটি সিকিউরিটি কোড প্রদান করা হয়েছিল উক্ত কোডটি সিকিউরিটি কোড হিসেবে দিতে হবে। ভর্তি কোটার ডকোমেন্টস শুধু মাত্র তাদেরকেই দিতে হবে যারা অনলাইনে ভর্তি আবেদনের সময় কোটায় ভর্তি আবেদন করেছিল। শিক্ষার্থীর ছবি এবং অভিভাবকের ছবিগুলো অবশ্যই সাম্প্রতিক সময়ে তোলা হতে হবে।

এমপিও ভুক্ত প্রতিষ্ঠান বা সরকারি কলেজের ক্ষেত্রে একাদশ শ্রেণি ভর্তি ফি

এলাকা বাংলা ভার্সন ইংরেজি ভার্সন
ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকা ৫০০০ + ৫০০০ +
ঢাকা ব্যতীত অন্যান্য মেট্রোপলিটন এলাকা ৩০০০ + ৩০০০ +
জেলা সমূহ ২০০০ + ২০০০ +
উপজেলা সমূহ ১৫০০ + ১৫০০ +

আংশিক এমপিওভুক্ত প্রতিষ্ঠান বা বেসরকারি কলেজের ক্ষেত্রে একাদশ শ্রেণীর শ্রেণীর ভর্তি ফি

এলাকা বাংলা ভার্সন ইংরেজি ভার্সন
ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকা ৭০০০ + ৮৫০০ +
ঢাকা ব্যতীত অন্যান্য মেট্রোপলিটন এলাকা ৫০০০ + ৬০০০ +
জেলা সমূহ ৩০০০ + ৪০০০ +
উপজেলা সমূহ ২৫০০ + ৩০০০ +

আরও পড়ুন:

HSC পরীক্ষার ফলাফল মার্কশিটসহ – HSC 2023 রেজাল্ট কবে দিবে ?

বিনামূল্যে মালদ্বীপে লাখ টাকার শিক্ষা সফর

অনলাইনে আবেদন না করে সরাসরি অফলাইনে ভর্তি হওয়া যাবে?

একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি হওয়ার জন্য শিক্ষা বোর্ডের নির্ধারিত অফিসিয়াল ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে অনলাইনে আবেদন করতে হবে। অনলাইনে ভর্তি আবেদন করা ছাড়া অফলাইনে College Admission এর কোন সুযোগ নেই। অনেকেই অনলাইনে আবেদন না করে, অথবা অনলাইনে আবেদন করে পছন্দসই কলেজে চান্স না পেয়ে, কলেজ কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলে অফলাইনে ভর্তি হতে চায় যেটি সম্পূর্ণ বেআইনি এবং তারা পরবর্তীতে প্রতারণার শিকার হয়। বিগত বছরগুলোতে দেখা গেছে কিছু কলেজের অসাধু কর্মকর্তা অফলাইনে ভর্তির নাম করে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। শিক্ষার্থীরা উক্ত কলেজগুলোতে ভর্তি হয়ে যাচ্ছে ক্লাস করছে এমনকি সেমিস্টারের পরীক্ষা গুলো দিচ্ছে কিন্তু যখন এইচ এস সি পরীক্ষা সন্নিকটে চলে আসে। এবং রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া শুরু হয়ে যায়, বোর্ড থেকে এডমিট কার্ড চলে আসে কলেজগুলোতে ঠিক তখনই ওই সকল অসাধু কর্মকর্তা দ্বারা প্রতারণার বিষয়গুলো সামনে আসতে শুরু করে।

কেননা কোন শিক্ষার্থী যদি অনলাইনের আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন না করে কলেজে ভর্তি হয় তাহলে তার সম্পর্কের কোন তথ্য বোর্ডের কাছে থাকে না ফলশ্রুতিতে বোর্ড থেকে যখন এডমিট কার্ড দেওয়া হয় তখন উক্ত শিক্ষার্থীদের নামে কোন এডমিট কার্ড ইস্যু করা হয় না। কলেজ কর্তৃপক্ষ চাইলেই আপনাকে অফলাইনে ভর্তি করাতে পারবে, নিয়মিত ক্লাস ও করতে পারবেন সেমিস্টার পরীক্ষা গুলো দিতে পারবেন কিন্তু এইচ এস সি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন না। তাই কখনোই এই অবৈধ উপায়ে অফলাইনে ভর্তি হতে গিয়ে প্রতারিত হবেন না। যদি অনলাইনে আবেদনের মাধ্যমে পছন্দের কলেজ টিতে সিট না পেয়ে থাকেন তাহলে যে কলেজে সিট পেয়েছেন উক্ত কলেজে ভর্তি হয়ে যান। পরবর্তীতে টিসি নিয়ে আপনি আপনার পছন্দের কলেজটিতে ভর্তি হতে পারবেন যদি সেই কলেজে আসন সংখ্যা খালি থাকে।

Student at GOVT. ADAMJEE NAGAR M. W. COLLEGE, Narayanganj. Currently residing in Dhaka. With a passion for the written word, I has been a voracious reader since childhood, exploring diverse genres and styles of writing. This love for literature eventually.

Leave a Comment